alo
ঢাকা, রবিবার, অক্টোবর ২, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা ‘ভুল’ ছিল: ইকোনোমিস্ট

প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট, ২০২২, ০৫:৩০ পিএম

রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা ‘ভুল’ ছিল: ইকোনোমিস্ট
alo

নিউজনাউ ডেস্ক: ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের জেরে রাশিয়ার উপর নজিরবিহীন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পশ্চিমা বিশ্ব। কিন্তু যে প্রত্যাশা নিয়ে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল তা পূরণ হয়নি বলে এক প্রতিবেদনে স্বীকার করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য ইকোনমিস্ট। এছাড়া, রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা বিশ্বের কৌশলগত নিষেধাজ্ঞা ‘ভুল’ ছিল।

বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে দ্য ইকোনমিস্ট।

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে চলতি বছরের শেষে রাশিয়ার জিডিপি ৬ শতাংশ কমে যাবে। কিন্তু নিষেধাজ্ঞার কারণে গত মার্চে রাশিয়ার জিডিপি ১৫ শতাংশের নিচে হবে বলে প্রত্যাশা করা হয়েছিল। শুরুতে ইউরোপে গ্যাস ও তেল রপ্তানি কম হওয়ার কারণে রাশিয়ার অর্থনীতি সাময়িক ধাক্কা খেয়েছিল। কিন্তু চীনসহ নতুন আমদানিকারক দেশ খুঁজে পাওয়ায় রাশিয়ার অর্থনীতি পুনরায় ঘুরে দাঁড়িয়েছে।

রাশিয়ার অর্থনীতি ধ্বংসের উদ্দেশ্যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্রদেশগুলো। এখন উল্টো ইউরোপে জ্বালানি সংকটের কারণে মন্দা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ চলতি সপ্তাহে ইউরোপে গ্যাসের দাম আরও ২০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। আগামী মাসগুলোতে জ্বালানির দাম আরও কয়েকগুণ বৃদ্ধির আশঙ্কা রয়েছে।

দ্য ইকোনোমিস্টের মতে, গত কয়েক মাসের পরিস্থিতি বিবেচনা করে দেখা যায়, রাশিয়ার ওপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার ফল নেতিবাচক।

১৯৯০ দশকে আমেরিকার আধিপত্য ছিল প্রশ্নাতীত। কিন্তু সেই একক আধিপত্য বর্তমানে আর নেই। ইরাক ও আফগানিস্তানে যুদ্ধের কারণে সামরিক দিক থেকে কিছুটা দুর্বল হয়ে গিয়েছে পশ্চিমা বিশ্ব।

অতীতে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং এর মিত্রদেশগুলোর নিষেধাজ্ঞার ফলাফল ভয়াবহ হিসেবে বিবেচনা করা হতো। কিন্তু রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা থেকে ওইসব দেশগুলোর ‘নিষেধাজ্ঞার অস্ত্র’ বর্তমানে যে ‘অকার্যকর’ তা উন্মোচিত হয়েছে।

সামরিক হামলার পর রাশিয়ায় বিভিন্ন প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান তাদের কার্যক্রম স্থগিত করেছে। এ সিদ্ধান্তটিও ভুল ছিল বলে দাবি দ্য ইকোনোমিস্টের। কারণ যে উদ্দেশ্যে রাশিয়ার ওপর প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো নিষেধাজ্ঞার দিয়েছে তা পূরণ হতে বহু বছর প্রয়োজন।

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে আগামী তিন থেকে পাঁচ বছর রাশিয়ার অর্থনীতি কিছুটা ধুঁকবে। কিন্তু এরপর পুনরায় রাশিয়ার অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়নি।

ব্রিটিশ ম্যাগাজেনটির মতে, রাশিয়ার ওপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার সবচেয়ে বড় ত্রুটি হচ্ছে রাশিয়ার ওপর শতাধিক দেশের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হওয়া। কারণ শতাধিক দেশগুলো বিশ্বের মোট জিডিপির ৪০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করে। এসব দেশগুলো কোনো দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলে তার ভয়ংকর প্রভাব সংশ্লিষ্ট দেশটির ওপর পড়তে বাধ্য। কিন্তু বিশ্বের বহু দেশের পশ্চিমা নীতি অনুসারে রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রদানে আগ্রহী নয়। একারণে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার প্রভাব রাশিয়ার ওপর আশানুরুপ হয়নি।


নিউজনাউ/এসকে/২০২২ 

X