alo
ঢাকা, রবিবার, অক্টোবর ২, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংঘর্ষের ঘটনায় সলিমপুরের ২০০ জনের বিরুদ্ধে ৬ মামলা

বসানো হচ্ছে চেকপোস্ট-সিসিটিভি

প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট, ২০২২, ০৬:৪০ পিএম

সংঘর্ষের ঘটনায় সলিমপুরের ২০০ জনের বিরুদ্ধে ৬ মামলা
alo

চট্টগ্রাম ব্যুরো: সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরের বাসিন্দাদের ভূমির স্থায়ী বন্দোবস্ত ও পানি-বিদ্যুতের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় ছয়টি মামলা হয়েছে। সীতাকুণ্ড থানায় পুলিশের করা এসব মামলায় নারী-পুরুষসহ প্রায় ২০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) রাতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলাগুলো দায়ের করেছে বলে জানিয়েছেন সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক।

তিনি বলেন, পুলিশের ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুরসহ দুটি ঘটনায় ৪৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরও অনন্ত দেড়শজনকে আসামি করা হয়েছে এসব মামলায়।

সরকারি কর্তব্য কাজে বাধা, বিস্ফোরক, রাষ্ট্রীয় সম্পত্তির ক্ষতি ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাগুলা করা হয়েছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

বিক্ষোভে সরকারবিরোধীদের উসকানির অভিযোগ তুলে পরিদর্শক সুমন বলেন, ঘটনাস্থলের ছবি বিশ্লেষণ করে এবং বিভিন্ন প্রকার তথ্যের ভিত্তিতে দেখা গেছে, সলিমপুর এলাকার বিএনপি-জামায়াতের লোকজনও জড়িত ছিল।

এর আগে, মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) প্রায় চার ঘণ্টা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে ভূমির স্থায়ী বন্দোবস্ত ও পানি-বিদ্যুতের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহের দাবি জানায় সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরের বাসিন্দারা।

তাদের বিক্ষোভের কারণে মহাসড়কে আটকা পড়ে বিভিন্ন শিল্প কারখানার পণ্যবাহী হাজারো যানবহান। বাসে, ব্যক্তিগত গাড়িতে আটকে পড়া হাজার হাজার নারী, শিশু, বৃদ্ধ ও অসুস্থ মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হয়।

শেষ পর্যন্ত তাদের সরিয়ে সড়কে যান চলাচল শুরু করতে বল প্রয়োগ করতে হয় পুলিশকে। সে সময় পুলিশের সাথে অবরোধকারীদের সংঘর্ষ বাঁধে।

জঙ্গল সলিমপুরের বাসিন্দাদের দাবি, ওই এলাকার দুই অংশ ছিন্নমূল ও আলীনগরের সব বাসিন্দাকে সরকারি খাস জমি স্থায়ী বন্দোবস্ত দিয়ে সেখানে সরকারি প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। তবে প্রশাসন বলছে, প্রকৃত ভূমিহীনদেরই শুধু পুনর্বাসন করা হবে।

এদিকে গ্যাস সিলিন্ডার, নির্মাণ সামগ্রীসহ সব ধরনের অবৈধ মালামালের প্রবেশ ঠেকাতে জঙ্গল সলিমপুরের প্রবেশমুখে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। ন্যাশনাল গ্যাস গ্রীড লাইনের ওপর যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। নজরদারি বাড়াতে সেখানে বসানো হচ্ছে সিসিটিভি ক্যামেরা।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্ব এ চেকপোস্টে সার্বক্ষণিক দায়িত্বে থাকবে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ, জেলা পুলিশ, র‌্যাব, আনসার সদস্য, ওয়াসা, সিটি করপোরেশন, সিডিএ, কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিসহ সরকারি সকল দফতরের প্রতিনিধিরা।  

বুধবার (২৪ আগস্ট) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড এর উচ্চ চাপবিশিষ্ট চট্টগ্রাম রিং-মেইন গ্যাস পাইপলাইনের ওপর দিয়ে জঙ্গল সলিমপুরের ছিন্নমূল ও আলীনগর যাওয়ার বিকল্প পথগুলো বন্ধ করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।  

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, জঙ্গল সলিমপুরে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। নিরাপত্তা আরও জোরদার করতে সেখানে বসানো হচ্ছে সিসিটিভি ক্যামেরা।  

প্রসঙ্গত, কারাগার স্থানান্তরসহ সরকারি মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরের আলীনগরে সরকারি পাহাড় দখল করে গড়ে তোলা অবৈধ বসতি ও স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু করে জেলা প্রশাসন। কয়েকদফা চালানো অভিযানে দুই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয় বিদ্যুৎ সংযোগ। তবে প্রথমদিনেই উচ্ছেদ অভিযানে গিয়ে বাধার মুখে পড়েন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। তারা উচ্ছেদে বাধা দেয়ার পাশাপাশি সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভের চেষ্টা করে। সেখানে এখন পর্যন্ত নয় বার অভিযান চালানো হয়েছে।​​​​​​​

নিউজনাউ/একে/২০২২
 

X