alo
ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আগরতলা-ঢাকা-চট্টগ্রাম ফ্লাইট চালু শীঘ্রই

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট, ২০২২, ০৫:০৮ পিএম

আগরতলা-ঢাকা-চট্টগ্রাম ফ্লাইট চালু শীঘ্রই
alo

চট্টগ্রাম ব্যুরোঃ ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরা ঢাকা ও চট্টগ্রামের সঙ্গে আকাশপথে যোগাযোগ স্থাপন করতে যাচ্ছে। ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলা থেকে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে এ দুই রুটে ফ্লাইট চলাচল শুরু হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।

গত  মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের তথ্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, "ভারতের ইউডিএএন আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্কিমের অধীনে আগরতলার মহারাজা বীর বিক্রম (এমবিবি) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত বিমান চলাচল শুরু হবে।"
বেসামরিক বিমান চলাচলের ফেডারেল মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।
যদি সবকিছু পরিকল্পনা মতো কাজ করে তবে সপ্তাহে তিনবার এই রুটে ফ্লাইট চলাচল করবে এবং ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ হাজার ৫০০ রুপি (৫ হাজার ৪০০ টাকা প্রায়)। এই রুটে ফ্লাইট চালাতে ইচ্ছুক বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলোর কাছে শিগগিরই দরপত্র পাঠাবে ভারতের বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রী জানান, আন্তর্জাতিক এ রুটে উড়োজাহাজ পরিষেবা পরিচালনার জন্য ত্রিপুরা সরকার প্রাথমিক অবস্থায় প্লেন পরিচালনাকারী সংস্থাকে প্রায় ১৫ কোটি রুপি ভর্তুকি দেবে।  

শনিবার এক টুইট বার্তায় ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, অবশেষে ঢাকা ও চট্টগ্রামের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিষেবা চালু করতে আগরতলার মহারাজা বীর বিক্রম (এমবিবি) বিমানবন্দর প্রস্তুত। ত্রিপুরার জনগণের স্বপ্ন পূরণের এই উদ্যোগের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান তিনি।

অপর এক টুইটে বিপ্লব কুমার দেব বলেন, বাংলাদেশের সাথে প্রস্তাবিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিষেবা ত্রিপুরার পর্যটনকে নিশ্চিতভাবে উৎসাহিত করবে এবং আকাশপথের যোগাযোগ রাজ্যকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে। একই সঙ্গে এটি বাংলাদেশের জনগণকে বিভিন্নভাবে উপকৃত করবে এবং দুই দেশের সম্পর্ক জোরদার করবে।

ত্রিপুরা রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে গৌহাটি ও মনিপুরের পর আগরতলার এমবিবি এয়ারপোর্ট হয়ে উঠল উত্তর পূর্ব ভারতের তৃতীয় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর।  
গত ৪ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এমবিবি বিমান বন্দরের নতুন টার্মিনাল ভবনের উদ্বোধন করেন।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২২

X