alo
ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সন্তান নেই, তাই নবজাতক চুরি: দম্পতিসহ গ্রেপ্তার ৫

প্রকাশিত: ৩০ আগস্ট, ২০২২, ১১:০০ পিএম

সন্তান নেই, তাই নবজাতক চুরি: দম্পতিসহ গ্রেপ্তার ৫
alo

 

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে নগরের একটি  হাসপাতাল থেকে সদ্যজাত শিশু চুরির ঘটনায় এক দম্পতি ও ওই হাসপাতালের তিন কর্মচারীসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, লালন-পালনের আশা নিঃসন্তান এই দম্পতি শিশুটিকে চুরি করে।

মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) ভোরে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। ওই নবজাতক আনোয়ারা উপজেলার গহিরা এলাকার মো. শহিদ ও তাসমিন আক্তার দম্পতির সন্তান।নবজাতক চুরির ঘটনায় জড়িত মূলহোতা শিমু দাসসহ পাঁচজনকে  গ্রেপ্তার করা হয়।

ইপিজেড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নেতৃত্বে চালানো অভিযানে অংশ নেয় আনোয়ারা থানা পুলিশও। গ্রেপ্তার দম্পতি হলেন- শিমু দাশ (২০) ও রিমন মল্লিক (২৬)। তাদের বাড়ি আনোয়ারা উপজেলার তৈলারদ্বীপ গ্রামে। এর আগে, গ্রেপ্তার হাসপাতালের তিনজন হলেন- নগরের ইপিজেড থানার নেভী হাসপাতাল গেইটের মমতা মাতৃসদন-২ হাসপাতালের সুপারভাইজার মোরশেদ আলম (৪২) এবং দুই নিরাপত্তা কর্মী মো. সেলিম (৩৯) ও আবুল কাশেম (৩০)।

এর আগে গত রবিবার (২৮ আগস্ট) বিকেলে নগরের ইপিজেডের মাতৃসদন ক্লিনিক থেকে শিশু বিশেষজ্ঞ পরিচয় দিয়ে টিকা দেয়ার কথা বলে স্বজনদের কাছ থেকে চুরি করা হয় নবজাতকটিকে। 

হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, রবিবার বিকেল চারটা চার মিনিটে সদ্য জন্ম নেয়া নবজাতক নিয়ে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে যাচ্ছেন এক নারী। মেডিকেলের ডাক্তার পরিচয় দিয়ে হাসপাতাল আসে ওই নারী। টিকা দেয়ার কথা বলে নিয়ে যায় নবজাতককে। এরপর থেকে হদিস মিলছে না ওই নবজাতক এবং নারীর। 

দীর্ঘ চার বছরের সাধনার পর জন্ম নেয়া সন্তান চুরি হয়ে যাওয়ায় পুরো পরিবারে চলে শোকের মাতম। অথচ দুদিন আগে সন্তান জন্ম নেয়ার পর সবাই খুশিতে আত্মহারা ছিল।

ইপিজেড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল করিম জানান, মমতা মাতৃসদন থেকে চুরি হওয়া নবজাতকটি আনোয়ারা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। চুরির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে একদম্পতি ও তাদের এক সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নবজাতকটিকে লালন-পালনের আশায় তারা সেটি চুরি করেছিল।

নিউজনাউ/একে/২০২২

X