alo
ঢাকা, শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ৩, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

'কিছু স্বার্থান্বেষী মহল আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে'

প্রকাশিত: ২১ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৮:২২ পিএম

'কিছু স্বার্থান্বেষী মহল আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে'
alo

লোহাগাড়া প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার চুনতি ইউনিয়ন পরিষদের টানা তিনবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন জনু তার বিরুদ্ধে কিছু পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপ-প্রচার চালানোর অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। 

শনিবার (২১ জানুয়ারি) দুপুর ১২টার দিকে চুনতি বাজারস্থ তার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে লিখিত বক্তব্যের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন ও অপ-প্রচারের অভিযোগ তুলেন। 

লিখিত বক্তব্যে চুনতি ইউপি চেয়ারম্যান জয়নুল আবেদীন জনু বলেন, সম্প্রতি কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্নরকম মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করা হয়। সংবাদে উল্লেখ করা হয়, উপজেলার চুনতির লুৎফুর রহমান লুতু মিয়া নামের এক ব্যক্তির খামারবাড়ি ভাংচুর করে জায়গা দখলে নিই, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। 

তিনি বলেন, প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে; পূর্ব চুনতির লুৎফুর রহমানের (লুতু মিয়া) সুফিনগর এলাকায় খামারবাড়ি এবং বাগান ২০ বছর আগে আমি জয়নাল আবেদীন, আব্দুন নুর, মোহাম্মদ ইদ্রিস মিয়া এবং হাজি নুরুল কবির যৌথভাবে ক্রয় করি এবং দখল বুঝে নিই। এরপর উক্ত জায়গায় বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা রোপণ করি। পরবর্তীতে গাছগুলো বিক্রি করে পূনরায় বাগান সৃজন করে আমরা চারজন ভোগদখলে স্থিত রয়েছি।

তিনি আরও বলেন, জমি বিক্রেতা লুতু মিয়ার মৃত্যুর পর তার মেয়ে শারমিন রহমান এবং মেয়ের জামাই মোহাম্মাদ রোমেল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে আমাদের ক্রয়কৃত এবং ভোগদখলীয় বাগানে এসে অবৈধভাবে গাছপালা কেটে ফেলার চেষ্টা করলে আমরা চট্টগ্রাম আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। মামলা করার পর থেকেই ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে। আমি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। 

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহমদ, চুনতি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ আলম পল্টু, চুনতি ইউপি সদস্য এনতেজার, জমির মালিক আব্দুল নুর, মোহাম্মদ ইদ্রিস মিয়া ও নুরুল কবিরের ছেলে মোহাম্মদ ফারুক প্রমুখ।

নিউজনাউ/আরএইচআর/২০২৩

X