alo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কালারওএস ১৩ এর বৈশ্বিক সংস্করণ উন্মোচন করলো অপো

প্রকাশিত: ২৩ আগস্ট, ২০২২, ০৩:৫৮ পিএম

কালারওএস ১৩ এর বৈশ্বিক সংস্করণ উন্মোচন করলো অপো
alo

নিউজনাউ ডেস্ক:সারা বিশ্বের ব্যবহারকারীদের জন্য অপো সম্প্রতি আনুষ্ঠানিকভাবে এর সর্বাধুনিক অ্যান্ড্রয়েড-ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেম কালারওএস ১৩ উন্মোচন করেছে। উন্মোচিত হওয়া নতুন অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেমের কালারওএস এ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ফিচার ব্যবহার করা হয়েছে। একইসঙ্গে, উপভোগ্য ও স্বাচ্ছন্দ্যদায়ক ভিজ্যুয়াল এক্সপেরিয়েন্স (অভিজ্ঞতা) পেতে এ অপারেটিং সিস্টেমে সম্পূর্ণ নতুন অ্যাকুয়ামরফিক ডিজাইন ও ব্যবহারবান্ধব ইউআই রয়েছে। নতুন এ অপারেটিং সিস্টেমে অপো’র সর্বাধুনিক উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে; ফলে কালারওএস ১৩ এর বিস্তৃত পরিসরের নতুন ফিচারগুলো ইন্টেলিজেন্ট এক্সপেরিয়েন্স সহ ফোন ব্যবহারের উন্নত অভিজ্ঞতা প্রদানের মাধ্যমে স্মার্ট মাল্টি ডিভাইস কানেকশনকে আরো উন্নত করবে।    

নতুন অ্যাকুয়ামরফিক ডিজাইন   

প্রকৃতিতে পানির কার্যকারিতা দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে এই অপারেটিং সিস্টেমের জন্য সম্পূর্ণ নতুন অ্যাকুয়াফরমিক ডিজাইন আনা হয়েছে, যা ফ্লুইড, ভাইব্র্যান্ট ও ইনক্লুসিভ ইউআই তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। কালারওএস ১৩ সমুদ্রপৃষ্ঠে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের মধ্যে আলোর পরিবর্তিত রঙের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে একটি নতুন থিম প্যালেট যুক্ত করেছে। এই নতুন সিস্টেম ফন্ট যে কোন ভাষায় সিস্টেম টেক্সটকে আরও পাঠযোগ্য করে। কার্ড-স্টাইলড লেআউটের মতো অন্যান্য আপগ্রেডের সাথে কালারওএস ১৩ অ্যাকুয়ামরফিক ডিজাইনের ওপর ভিত্তি করে আরামদায়ক ভিজ্যুয়াল অভিজ্ঞতা প্রদানের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

কালারওএস ১৩ সিস্টেম অ্যানিমেশন, ইউআই, এবং কোয়ান্টাম অ্যানিমেশন ইঞ্জিনে ব্যবহারকারীদের নিয়ন্ত্রণের অভিপ্রায়ের (ইউজারস কন্ট্রোল ইন্টেনশন) ওপর নতুন বিহেভেরিয়াল প্রেডিকশন সহ বিভিন্ন অ্যাকুয়ামরফিক প্রভাবগুলো একীকরণের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের আরো উন্নত অভিজ্ঞতা প্রদান করে। এটি অপো’র হিউম্যান সেন্ট্রিক (মানব-কেন্দ্রিক) অন্তর্ভুক্তিমূলক ডিজাইনের ভাষার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ, যা এম্পটি স্টেট ইলাস্ট্রেশন, হাইলি রিকগনাইজেবল আইকন ও বিভিন্ন স্ক্রিনের আকারের জন্য অ্যাডাপ্টিভ লে-আউট নিয়ে এসেছে, যার ফলে পাঠযোগ্যতা বাড়বে এবং সামগ্রিক ব্যবহারের অভিজ্ঞতা আরও উন্নত হবে। পাশাপাশি নতুন অলওয়েজ-অন ডিসপ্লে ইমেজকে ‘হোমল্যান্ড’ বলা হয়, যা প্রকৃতিতে বন্য প্রাণীদের প্রাণবন্ত দৃশ্যগুলোকে চিত্রায়ন করে৷ অলওয়েজ-অন ডিসপ্লে অ্যানিমেশনগুলো যেখানে প্রাণীরা বাস করে সেই ঘরের পরিবর্তনগুলো তুলে ধরে এবং প্রতিদিনের তাপমাত্রার পরিবর্তনের ওপর ভিত্তি করে ব্যবহারকারীকে জলবায়ু পরিবর্তন এবং মানুষ যে পৃথিবীতে একসাথে বসবাস করে তার প্রতি মনোযোগ দেওয়ার জন্য আহ্বান জানায়৷ 

সেল্ফ-ডেভেলপড প্রযুক্তি ডিভাইসের পারফরমেন্সকে উন্নত করবে

কালারওএস ১৩ ডায়নামিক কম্পিউটিং ইঞ্জিন অপো’র সিস্টেম লেভেলের প্রযুক্তিগত সমাধান, যা সর্বাত্মক উন্নত অভিজ্ঞতা প্রদানের জন্য অভ্যন্তরীণভাবে তৈরি করা হয়েছে। ইঞ্জিন কালারওএস ১৩ এ দুটি বড় পরিবর্তন নিয়ে আসা হয়েছে, যার মধ্যে ব্যাটারির আয়ু বৃদ্ধি এবং ব্যাকগ্রাউন্ডে আরও অ্যাপ খোলা রাখার সক্ষমতা অন্যতম। অপো’র ডায়নামিক কম্পিউটিং ইঞ্জিন উচ্চ কার্যক্ষমতা এবং কম শক্তি খরচের মধ্যে একটি ভারসাম্য অর্জনের মাধ্যমে ব্যাটারির আয়ু বাড়ানোর জন্য হার্ডওয়্যার রিসোর্সগুলোর শিডিউলিংকে উন্নত করে। এটি ব্যাকগ্রাউন্ডে অ্যাপকে সচল রাখতে সাহায্য করে এবং এটি একটি অ্যাপের মধ্যে স্ট্যাটাস না হারিয়ে বা স্যুইচ করার সময় ল্যাগ অনুভব না করেই একাধিক অ্যাপের মধ্যে স্যুইচ করার বিষয়টিকে সম্ভব করে।

সম্পূর্ণ নতুন স্মার্ট ফিচার ইন্টেলিজেন্ট ওয়ার্ক ও জীবনকে উন্নত করবে

কালারওএস ১৩ জীবন এবং কাজের প্রতিটি বিষয়কে কাভার করে স্মার্ট ফিচারের বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে থাকে। ব্যবহারকারীর ব্যক্তিত্ব প্রকাশ করার একটি দুর্দান্ত উপায় ছাড়াও, কালারওএস ১৩ এ স্মার্ট অলওয়েজ-অন ডিসপ্লে এখন মিউজিক এবং ফুড ডেলিভারি অ্যাপস সম্পর্কিত তথ্য প্রদর্শন করতে পারে, যা ব্যবহারকারীদের মিউজিক প্লেব্যাক ও অন্যান্য ফাংশনগুলো আরো সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করতে সাহায্য করে। অপো বিটমোজি ও স্পটিফাই সহ বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় সফটওয়্যার এবং সেবা প্রদানকারীদের সাথে অংশীদারিত্ব করেছে, যার ফলে ব্যবহারকারীদের জন্য স্মার্ট অলওয়েজ-অন ডিসপ্লের মাধ্যমে বিস্তৃত পরিসরের সুবিধাজনক এবং পারসোনালাইজড অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। 

এ খাতের শীর্ষস্থানীয় এলটিপিও২.ও প্রযুক্তি ব্যবহারের কারণে, কিছু পরিস্থিতিতে ৩০ শতাংশ শক্তি সাশ্রয় করতে অলওয়েজ-অন-ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট মাত্র ১ হার্টজ পর্যন্ত নেমে আসে। অন্যান্য স্মার্ট হোম স্ক্রিন ম্যানেজমেন্ট ফিচার যেমন বড় ফোল্ডার, শেল্ফ, এবং হোম স্ক্রিন উইজেট ব্যবহারকারীদের জন্য এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে, যা তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য সহজে এবং দ্রুত ব্যবহার করতে সাহায্য করে।

কোভিড-১৯ বৈশ্বিক মহামারির পর অনলাইন মিটিংগুলো ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তাই অপো স্মার্টফোন খাতের জন্য প্রথম মিটিং অ্যাসিস্ট্যান্ট তৈরি করেছে, যা বিশেষভাবে অনলাইন মিটিংয়ের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। অনলাইন মিটিংয়ের সময় আরো স্থিতিশীল সংযোগ (কানেকশন) প্রদান করতে মিটিং অ্যাসিসট্যান্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবে ওয়্যারলেস ডেটা প্যাকেজগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে। এটি অপো নোটস শর্টকাট নিয়ে এসেছে, যার সাহায্যে ব্যানার নোটিফিকেশনের ঝামেলা এড়িয়ে ব্যবহারকারীরা ছোট পপ-আপ উইন্ডোতে মিটিং মিনিট নিতে পারবে।  

এই অপারেটিং সিস্টেমে সবচেয়ে বড় আপডেটগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ব্যবহারকারীকে উন্নত মাল্টি-ডিভাইস ব্যবহারের অভিজ্ঞতা প্রদান। মাল্টি-স্ক্রিন কানেক্ট এখন স্মার্টফোন এবং অপো প্যাড এয়ার ও স্মার্টফোন এবং পিসির মধ্যে নিরবচ্ছিন্ন সংযোগ সমর্থন করে, ফাইল ট্রান্সফারের মাধ্যমে প্রোডাক্টিভিটি এবং সুবিধা বাড়ায় যা হার্ডওয়্যারের সীমাবদ্ধতা ছাড়াই আরও ফাইল ফরম্যাটকে সমর্থন করে। মাল্টি-স্ক্রিন কানেক্টের মাধ্যমে একটি পিসিতে একাধিক মোবাইল সংযোগ করা যাবে এবং  ব্যবহারকারীরা পিসি স্ক্রিনে একই সাথে একাধিক মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। 

নিরাপত্তা ও সুরক্ষায় অগ্রাধিকার

শুরু থেকেই প্রাইভেসি ও সিকিউরিটির ওপর কালারওএস গুরুত্ব দিয়েছে। কালারওএস ১৩ এ অ্যান্ড্রয়েড ১৩ অপারেটিং সিস্টেমের গোপনীয়তা সংক্রান্ত ফিচারগুলোকে সুসংহত করা হয়েছে৷ উদাহরণস্বরূপ, কিছু সময় পর সিস্টেম স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্লিপবোর্ড হিস্টোরিকে (ইতিহাস) মুছে ফেলবে এবং ম্যালওয়্যারের আক্রমণে সংবেদনশীল তথ্য ফাঁস রোধ করবে। পাশাপাশি, নেয়ারবাই ওয়াই-ফাই ফিচারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা নির্দিষ্ট অবস্থানের তথ্য প্রকাশ না করেই ওয়াই-ফাই সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন৷

অপো’র সেল্ফ-ডেভেলপড প্রযুক্তি গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অন-ডিভাইস অ্যালগরিদম মডেলের ওপর ভিত্তি করে, অটো পিক্সেলেট স্বয়ংক্রিয়ভাবে চ্যাট স্ক্রিনশটে প্রোফাইল ফটো এবং নামগুলোকে অস্পষ্ট (ব্লার) করতে পারে এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নতুন প্রাইভেট সেফ বহুল ব্যবহৃত অ্যাডভান্সড এনক্রিপশন স্ট্যান্ডার্ড (এইএস) দিয়ে এনক্রিপ্ট করা হয়েছে। কালারওএস ১৩ গোপনীয়তা এবং সুরক্ষা প্রদান করে – এই সিস্টেম ই-প্রাইভেসি, ট্রাস্টই, আইএসও২৭৭০১ এবং আইএসও২৭০০১ এর মতো অথোরেটিটিভ নিরাপত্তা এবং প্রাইভেসি অথেনটিকেশন মানগুলোর ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা বলে ব্যবহারকারীরা এটি বিশ্বাস করতে পারেন।

গুগলের সাথে কৌশলগত সহযোগিতার মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড অভিজ্ঞতাকে উন্নত করা

কালারওএস ১৩ এর বিকাশের সময় অ্যান্ড্রয়েড অভিজ্ঞতায় নতুন মাত্রা যোগ করতে গুগল এর সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করেছে অপো। অপো’র ফ্ল্যাগশিপ ফাইন্ড এন ফোল্ডেবল স্মার্টফোন এবং ফাইন্ড এক্স৫ প্রো ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলো বিশ্বব্যাপী অ্যান্ড্রয়েড ১৩ বেটা আপডেট পাওয়া প্রথম দু’টি ফোন। অপো অ্যান্ড্রয়েড ১৩ বেটার ওপর ভিত্তি করে কালারওএস ডেভেলপার সংস্করণও চালু করেছে এবং একটি সমৃদ্ধ অ্যান্ড্রয়েড ইকোসিস্টেম তৈরি করতে গুগল এর সাথে একসাথে কাজ করে যাবে।

কালারওএস ১৩ সংক্রান্ত পরিকল্পনা ও আপগ্রেড নীতি 

বৈশ্বিকভাবে কালারওএস ১৩ উন্মোচনের পর, অপো বছরে প্রায় ৩৫টি স্মার্টফোন মডেল আপডেট করার পরিকল্পনা করেছে, যার মধ্যে ৬০টিরও বেশি দেশ ও অঞ্চল এবং ১৬০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী রয়েছে। কালারওএস এর ইতিহাসে এটি এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় আপডেট প্ল্যান (পরিকল্পনা)। ফাইন্ড এক্স ৫ প্রো ও ফাইন্ড এক্স ৫ ফোন দু’টির মাধ্যমে কালারওএস ১৩ আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হয়েছে। ২০২৩ সালের শুরুতে অপো আরো ২০টিরও বেশি ডিভাইসে কালারওএস ১৩ নিয়ে আসবে।  

 

অপো সম্পর্কে: 

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় স্মার্ট ডিভাইস ব্র্যান্ড অপো। ২০০৮ সালে তাদের প্রথম মোবাইল ফোন 'স্মাইলি ফেস' উন্মোচনের পর থেকে গ্রাহকদের নান্দনিক ও উদ্ভাবনী প্রযুক্তির মিশেলে তৈরি ডিভাইস সরবরাহের জন্য নিবেদিতভাবে কাজ করছে অপো। বর্তমানে অপো ফাইন্ড এক্স ও রোনো সিরিজসহ বিস্তৃত পরিসরের স্মার্ট ডিভাইস বাজারে নিয়ে আসছে। ডিভাইসের পাশাপাশি, অপো তাদের গ্রাহকদের জন্য অপো ক্লাউড এবং অপো+ এর মতো কালারওএস অপারেটিং সিস্টেম ও ইন্টারনেট সেবা প্রদান করছে। বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশ এবং অঞ্চলে অপো তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বিশ্বব্যাপী গ্রাহকদের উন্নত সেবা প্রদানের লক্ষ্যে অপো'র ৪০,০০০ হাজারেরও বেশি কর্মী কর্মরত আছেন।

 
নিউজনাউ/এবি/২০২২
 

X