alo
ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

খরার কবলে আমন চাষ, বিপাকে কৃষক

প্রকাশিত: ০২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৩:৫৮ পিএম

খরার কবলে আমন চাষ, বিপাকে কৃষক
alo

 


খাদেমুল ইসলাম মামুন, টাঙ্গাইল থেকে: আষাঢ় ও শ্রাবন মাস বর্ষকাল। বর্ষা মৌসুমে নদী-নালা, খাল-বিল, মাঠ-ঘাট পানিতে ভরা থাকে। কিন্তু এবার বর্ষকালে ফসলের মাঠে চৈত্রের প্রভাব বিরাজ করছে। বৈরী আবহাওয়ায় আষাঢ় শ্রাবনে বৃষ্টি না হওয়ায় খরার কবলে পড়েছে এবারের আমন চাষ। পানির অভাবে আমন ক্ষেত ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় ঘাটাইলের কৃষকরা আমান আবাদ নিয়ে রয়েছেন চরম বিপাকে।


ঘাটাইলের কাশতলা গ্রামের কৃষক আব্দুর রহমান জানান, আমনের আবাদ অনেকটাই বৃষ্টির উপর নির্ভরশীল। অনাবৃষ্টির কারনে জমিও প্রস্তুত করা যাচ্ছে না। ফলে সময় মতো আমনের চারা রোপন করা যাচ্ছে না। মেশিনে সেচ দিয়ে যারা আমনের চারা রোপন করেছিল তারাও বিপদে আছে। ওই সব ক্ষেতে সময় মতো পানি দিতে না পারায় শুকিয়ে যাচ্ছে। 

মধুপুরের উপজেলার কৃষক মজিবর মিয়া নিউজনাউ ২৪ কে জানান, আমন মৌসুমে সাধারনত বৃষ্টির পানিতে রোপা আমন লাগানো হয়। প্রকৃতির অস্বাভাবিক আচরনে বৃষ্টি না হওয়ায় মেশিনের মাধ্যমে বিকল্প সেচের ব্যবস্থা করে কৃষক রোপা আমন লাগিয়েছে। তবে বৃষ্টি না হলে উচু জমিতে লাগানো আমন ধানের চারা মরে যাচ্ছে। 

টাঙ্গাইল জেলা কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এ বছর বোরো ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লাখ ৬৮ হাজার হেক্টর জমি। এখন পর্যন্ত বোরো চারা রোপণ করা হয়েছে ৬০০ হেক্টর জমিতে। 

গত বছর বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৬৬ হাজার ৬২১ হেক্টর। ২০১৪ সালে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৭০ হাজার ৮২ হেক্টর, অর্জিত হয়েছিল ১ লাখ ৭০ হাজার ২৯ হেক্টর। 

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবুল হাশিম নিউজনাউ ২৪ কে বলেন, টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলায় এ বছর বৃষ্টি না থাকায় বৈরি আবহাওয়ার কারনে আমন ধান রোপনে সম্যসা হচ্ছে। তারপরও কৃষক বিকল্পভাবে সেচের ব্যবস্থা করো জমিতে রোপা আমন লাগাচ্ছে। প্রকৃতির প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে বলে আশা করছি।


নিউজনাউ/এবি/২০২২

X