alo
ঢাকা, শুক্রবার, ডিসেম্বর ৯, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিএনপির চেয়ে আ.লীগ এক ডিগ্রী বেশি: জিএম কাদের

প্রকাশিত: ০৩ অক্টোবর, ২০২২, ০৭:৩৬ পিএম

বিএনপির চেয়ে আ.লীগ এক ডিগ্রী বেশি: জিএম কাদের
alo

 

 

রংপুর ব্যুরো: জাতীয় পাটির্র চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের মন্তব্য করেছেন, যে জন্য আওয়ামী লীগ সরকারকে সমর্থন দেয়া হয়েছিল তার বাস্তব প্রতিফলন ঘটেনি। এ সরকার ক্ষমতায় এসে যা করছে তা বিএনপির চেয়ে এক ডিগ্রী বেশি। 

জাতীয় পার্টি এই অসচ্ছ রাজনীতির পরিবর্তন চায়। সোমবার দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সথে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

নির্বাচনে জোট গঠনের বিষয়ে জিএম কাদের বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তাদের নির্বাচনে যাওয়া না যাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটার উপর দলটির ভবিষ্যৎ রাজনীতির অস্তিত্ব নির্ভর করছে। তাই তৃণমূল থেকে দলের উচ্চ পর্যায়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

বিএনপির সঙ্গে গোপন আঁতাতের বিষয়ে জিএম কাদের বলেন, জাতীয় পার্টি গোপন কোনো আঁতাত করে না। যা কিছু হবে স্বচ্ছ।

বিএনপির সঙ্গে আওয়ামী লীগের নীতিগত পার্থক্য থাকলেও তাদের কর্মকান্ড উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশের মানুষ এদের বাইরে কাউকে চায়। দেশের মানুষ সামাজিক নিরাপত্তা চায়,  দেশের মানুষ খুন ধর্ষণ লুটপাট থেকে উদ্ধার চায়। জাতীয় পার্টি নিজস্ব রাজনীতি এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। দেশের মানুষের সুস্থ রাজনীতি উপহার দিতে চায়।

এরশাদের শাসনামলের কথা উল্লেখ করে জিএম কাদের বলেন,  এরশাদের শাসনামলে এসব ছিল না। সংখ্যালঘুরা ভালো ছিল। দেশে সুশাসন ছিল। দুর্নীতি কম ছিল। জাতীয় পার্টি তেমন সুশাসন নিশ্চিত করে দেশকে এগিয়ে নিতে চায়।

দেশের সার্বিক পরিস্থিতি অত্যন্ত নাজুক উল্লেখ করে জিএম কাদের বলেন, রাজনৈতিক পরিস্থিতি অস্থিতিশীল। সামনে নির্বাচন। কিন্তু জাতীয় পার্টি এখন পর্যন্ত কিছুই বুঝতে পারছে না। নির্বাচনে সব দল অংশ নেবে কিনা, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে কিনা তা নিয়েও শঙ্কা রয়েছে।

দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা আরো বেশি নাজুক জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, দেশে প্রবাসী আয় কমে যাচ্ছে। যেখানে আমদানি ব্যয় বাড়ছে, রিজার্ভ কমে আসছে। সেখানে বিভিন্ন মেগা প্রকল্পের যে ঋণ তার বোঝা দেশ কতটুকু বইতে পারবে তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন তিনি।

জাতীয় পার্টিতে ভাঙনের বিষয়ে জিএম কাদের বলেন, একটা দলে থাকলে অনেকেই নির্বাচন করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন। এরমধ্য থেকে একজনকে বেছে নেয়া হয়। রংপুর সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে মনোনয়ন দেয়ার কথাও জানান তিনি।
পাঁচ দিনের সফরে ঢাকা থেকে বেলা ১২টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান জিএম কাদের। পড়ে সড়ক পথে রংপুর সার্কিট হাউসে পৌঁছালে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান নেতাকর্মীরা।

এসময় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, রংপুর জেলা জাতীয় পাটির্র আহ্বায়ক বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল মাসুদ নান্টু, সদস্য সচিব  আব্দুর রাজ্জাক, মহানগর জাতীয় পাটির্র সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসীরসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজনাউ/এবি/২০২২

X