alo
ঢাকা, রবিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মাগুরায় স্বাস্থ্যখাতে অব্যবস্থাপনা দূরীকরণে সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান

প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৩:২৫ পিএম

মাগুরায় স্বাস্থ্যখাতে অব্যবস্থাপনা দূরীকরণে সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান
alo

 

মাগুরা প্রতিনিধি: মাগুরা জেলায় স্বাস্থ্যখাতে অব্যবস্থাপনা দূর করা ও সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করাসহ ১১ দফা দাবিতে মাগুরা গণকমিটির উদ্যোগে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশ শেষে সিভিল সার্জন বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।   

আজ  বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১১টায় স্থানীয় প্রেসকাবের সামনে এ সামাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

সমাবেশ শেষে গণকমিটির প্রতিনিধি দলটি সিভিল সার্জন বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেন। 

 স্মারকলিপিতে বলা হয়, মাগুরা জেলায় চিকিৎসা ক্ষেত্রে চরম নৈরাজ্য চলছে। সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা অপর্যাপ্ত। ডাক্তার, নার্স, মেডিকেল টেকনিশিয়ানসহ রয়েছে লোকবল সংকট। ওষুধ, টেস্ট, অপারেশনসহ বেশিরভাগ  চিকিৎসা সেবা  হাসপাতালের বাইরে থেকে নিতে হয়। উপজেলা পর্যায়েও সেভাবে কোন চিকিৎসা সেবা পাওয়া যায় না। কমিউনিটি ক্লিনিক আছে কিন্তু সেখানে কোন ডাক্তার থাকেন না, প্রয়োজনীয় ওষুধ পাওয়া যায় না। অন্যদিকে ব্যাঙের ছাতার মতো অবৈধ ক্লিনিক গজিয়ে উঠেছে। সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার অপর্যাপ্ততার কারণে রোগীরা এসব ক্লিনিকে যেতে একভাবে বাধ্য হন এবং অপচিকিৎসার শিকার হন। আর সরকারি হাসপাতালে পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা না থাকায় এই জেলার মানুষের চিকিৎসা ব্যয় অনেক বেশি হয়ে যায় এবং অধিকাংশ দরিদ্র মানুষ চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হন। অথচ বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী চিকিৎসা আমাদের মৌলিক অধিকার। 

গণকমিটি মাগুরা জেলার পক্ষ থেকে আমরা প্রত্যাশা করি আপনি জেলার স্বাস্থ্যখাতের অব্যবস্থাপনা দূর করা এবং সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। ১১ দফা দাবি নিম্নে যুক্ত করা হল। 

১। মাগুরা জেলায় স্বাস্থ্যখাতে অব্যবস্থাপনা দূর করতে হবে
২। সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে হবে
৩। মাগুরা জেলায় ডাক্তারদের ফি সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা নির্ধারণ করতে হবে
৪। অবৈধ ক্লিনিক বন্ধ করতে হবে
৫। সরকারি হাসপাতালে জরুরী মেডিকেল টেস্ট নিশ্চিত করতে হবে
৬। সরকারি হাসপাতালের সকল শূণ্যপদে ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দিতে হবে
৭। সরকারি হাসপাতালে সকল ধরনের জরুরী ওষুধ সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে
৮। সকল ধরনের অপরেশন সরকারি হাসপাতালে নিশ্চিত করতে হবে
৯। সরকারি হাসপাতালে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে
১০। রোগীদের খাবারের মান উন্নত করতে হবে
১১। সরকারি হাসপাতালে সকল ধরনের দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে
পুনঃ শুভেচ্ছাসহ।
সমাবেশে গণকমিটির আহ্বায়ক এটিএম মহব্বত আলী সভাপতিত্ব করেন।বক্তব্য প্রদান করেন, গণকমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক  কাজী নজরুল ইসলাম ফিরোজ, যুগ্ম আহ্বায়ক এটিএম আনিসুর রহমান। সমাবেশ পরিচালনা করেন সদস্য সচিব প্রকৌশলী শম্পা বসু। 

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২২ 

X