alo
ঢাকা, শুক্রবার, ডিসেম্বর ২, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রকৃতির অলঙ্কার পানা ফুল

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর, ২০২২, ০১:০৯ পিএম

প্রকৃতির অলঙ্কার পানা ফুল
alo

 

খাদেমুল ইসলাম মামুন, টাঙ্গাইল থেকে: বিস্তীর্ণ জলাশয়। সবুজের মধ্যে সাদা, হালকা গোলাপি আর বেগুনির মিশেলে ফুটে আছে রাশি রাশি ফুল। দেখে মনে হচ্ছে শিল্পীর তুলিতে আঁকা কোনো ছবি। প্রকৃতির সৌন্দর্যকে আরও বেশি অলংকরণ করছে এই বন্য জলজ ফুল। 

বহুবর্ষজীবী মুক্তভাসমান একটি জলজ উদ্ভিদ কচুরিপানা। যার আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকায়। এটি প্রচুর বীজ তৈরি করে যা ৩০ বছর পরও বংশবিস্তার ঘটাতে পারে । অনেকের ধারণা কচুরিপানা ফুলের সৌন্দর্য প্রেমিক এক ব্রাজিলীয় পর্যটক ১৮শ শতাব্দীর শেষের দিকে বাংলায় কচুরিপানা নিয়ে আসেন। তারপর তা দ্রুত বাড়তে থাকে। পরে বাংলার প্রায় প্রতিটি জলাশয় ভরে যায়।

গ্রামাঞ্চলে এই কচুরিপানা ফুলটিকে অনেকে ‘হেনা’ বলে ডাকেন। কিছু এলাকায় এটি ‘কস্তুরি’ ফুল নামেও বেশ পরিচিত।

টাঙ্গাইলের সখীপুর, কালিহাতী, ভূয়াপুর এবং ঘাটাইলের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় এমন দৃশ্য। বৃহস্পতিবার বিকালে ঘাটাইল উপজেলার ধলাপাড়া ইউনিয়নের শহরগোপিনপুর বাজারের পশ্চিম পাশে খালপাড় এলাকায় কচুরিপানা ফুলের অপরূপ সৌন্দর্য্যের দৃশ্য দেখা যায়। ঘাটাইল-সাগরদীঘি সড়কের দুপাশেই মনোমুগ্ধকর দৃশ্য চোখে পড়ার মতো । সড়কে পথচারীরা কেউ কেউ দাঁড়িয়ে উপভোগ করছেন এ সৌন্দর্য । অনেক শৌখিন প্রকৃতি প্রেমীরা ক্যামেরা বন্দী করছেন এ মনোরম দৃশ্যের ।

সরেজমিন দেখা যায়, পদ্ম বিল, আঠারো চূড়া বিল এবং কাইলান বিলে হাজার হাজার ফুল ফুটে আছে। দৃষ্টিনন্দন সাদা, লাল ও হালকা গোলাপি ফুলের ছড়াছড়ি। যেখানেই দৃষ্টি যাচ্ছে শুধু ফুল আর ফুল চোখে পড়ছে। নয়নাভিরাম ফুলের প্রকৃতিকে এক অপরূপ সৌন্দর্যে যেন ফুটিয়ে রেখেছেন। বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ভ্রমণ প্রিয় ছোট ছোট শিশু শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে। এই বিলগুলোতে যুগ যুগ ধরে এভাবেই ফুটছে কচুরিপানা ফুল।

স্থানীয়দের পালিত হাঁস, সাদা বক, পাতি বক, পানকৌড়িসহ বিভিন্ন ধরনের পাখি বিলটির সৌন্দর্য আরও বেশী ফুটিয়ে তুলেছে। বিলপাড়ের বাসিন্দারা রাতের বেলায় ডাহুক পাখির ডাকে এক অন্যরকম আনন্দ উপভোগ করেন।

ঘাটাইল উপজেলা কৃষি অফিসার দিলশাদ জাহান বলেন, প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেওয়া কচুরিপানা ফুল দেখতে অনেক সুন্দর। ভ্রমণপিপাসুদের জন্য এই দৃশ্য নিঃসন্দেহে আনন্দের। জলজ এই বনফুল সবাইকে মুগ্ধ করবে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সরকারি সা'দত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মো. কামরুজ্জামান আহমেদ জানান, মুক্ত জলাশয়ে ফুটন্ত কচুরিপানা ফুল প্রকৃতিতে মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে। এ অরূপ সৌন্দর্য মনকে মাতিয়ে যাচ্ছে। উষ্ণতা বয়ে আনছে প্রকৃতিপ্রেমিদের হৃদয়ে।

নিউজনাউ/আরবি/২০২২

X