alo
ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিবির নেতাকে হত্যা: সাবেক ইউপি মেম্বারসহ ৬ আ.লীগ নেতার যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৪:৪৭ পিএম

শিবির নেতাকে হত্যা: সাবেক ইউপি মেম্বারসহ ৬ আ.লীগ নেতার যাবজ্জীবন
alo

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলায় পূর্ব শত্রুতার জেরে শিবির নেতা আব্দুল্লাহ আল মঞ্জুকে (১৭) এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে ও মারধর করে নির্মমভাবে হত্যার দায়ে সাবেক ইউপি সদস্যসহ ৬ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীর যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তাদেরকে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।  

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলামের আদালত এ রায় দেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী রায় ঘোষণার বিষয়টি নিউজনাউকে নিশ্চিত করেছেন।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন—কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি গ্রামের আব্দুল মতলেব আলী ছেলে আব্দুল্লাহ, একই গ্রামের বাদশা আলীর ছেলে রুবেল, মৃত মকছেদ আলীর ছেলে কাশেম, মৃত ফকির চাঁদের ছেলে রুহুল আমিন, আফসার আলীর ছেলে নজরুল ও ফরিদ। তারা সবাই একই গ্রামের বাসিন্দা।

এদের মধ্যে রুহুল আমিন পান্টি ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং নিহত মঞ্জু শিবিরের নেতা ছিলেন।

রায় ঘোষণার সময় যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত ৫ আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর পরই তাদের পুলিশ পাহারায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রুবেল পলাতক রয়েছে। এ মামলার ২৯ জন আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার পান্টি গ্রামের চেয়ারম্যান পাড়ার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আব্দুল্লাহ আল মঞ্জুকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ফালা দিয়ে কুপিয়ে ও এলোপাতাড়িভাবে মারধর করে নির্মমভাবে হত্যা করে আসামিরা। ২০১২ সালের ১৩ এপ্রিল সকাল ৮টার দিকে বাড়ির পাশে এ ঘটনা ঘটেছিল। এঘটনায় নিহত মঞ্জুর বাবা বাদী হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে কুমারখালী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন । 

মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নাসির উদ্দিন আসামিদের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ৩০ এপ্রিল আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর আদালত এ মামলায় ১৫ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন। নির্ধারিত ধার্য তারিখে আদালতের বিচারক মামলার আসামিদের শাস্তির আদেশ দেন। 

নিউজনাউ/আরএইচআর/২০২৩

X