alo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ম্যাপল পাতার দেশ কানাডায় কাজের সুযোগ

প্রকাশিত: ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৪:৪৮ পিএম

ম্যাপল পাতার দেশ কানাডায় কাজের সুযোগ
alo

 

নিউজনাউ ডেস্ক: কানাডা উত্তর আমেরিকার উত্তরাংশে অবস্থিত, আয়তনে এটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। হাড় কাঁপানো ঠান্ডা, ম্যাপল পাতা, লিলি ফুল আর বিনয়ী মানুষের দেশ হিসেবে পরিচিত কানাডায় অভিবাসী হওয়ার নতুন দুয়ার খুলছে এবার।ওয়ার্ক ভিসা দিচ্ছে কানাডিয়ান ইমিগ্রেশন।

চলতি বছর ৪ লাখ ৩০ হাজার অভিবাসীকে স্থায়ী বসবাসের সুযোগ দিয়েছে কানাডা। করোনা মহামারির ধাক্কা সামলে উঠার পর অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কানাডা এখন লেবার সংকটে ভুগছে। তাই, স্বাভাবিকের তুলনায় এখন অনেক বেশি ওয়ার্ক পারমিট দিচ্ছে কানাডা সরকার। সেই সাথে কাজ পাওয়ার প্রক্রিয়াকে আরো সহজ করতে কাজ করছে তারা। 

ফলে বিদেশীদের জন্য কানাডায় কাজ পাওয়ার আগে যে সমস্যা বা জটিলতা ছিলো, সেসবও কমতে শুরু করেছে। 

বিশেষ করে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, মানব সম্পদ কর্মকর্তা, ব্যাংকার, ব্যবসায়ী, রন্ধনশিল্পী, সেবাপ্রদানকারী, ট্রাক ড্রাইভারদের কাজ এখন অনেক বেশি পাওয়া যাচ্ছে। সেই সাথে ফ্রেঞ্চ জানা থাকলে কাজ পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে না, এমনটাই জানিয়েছেন গ্রোয়িং গ্লোব ইমিগ্রেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সারগুন সিং। 

তিনি আরো বলেন, কাজ পাওয়ার জন্য শর্ত হচ্ছে, এক থেকে দুই বছরের অভিজ্ঞতা, সেই সাথে ইংরেজি অথবা ফ্রেঞ্চ বলার দক্ষতা। আর যদি সেসবের সাথে কাজ সংশ্লিষ্ট কোনো ডিগ্রি থাকে, তাহলে তাকে নেওয়ার জন্য অবশ্যই মুখিয়ে থাকবে কানাডিয়ান কোম্পানিগুলো। 

তিনি আরো জানান, সংযুক্ত আরব আমিরাতে থাকা লোকজনের জন্য সেখানে মানিয়ে নেওয়াও সমস্যা হবে ন। কারণ, কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ দুই দেশেই অনেকটা একই। 

কেমন খরচ হতে পারে, সে বিষয়ে জানতে চাইলে সারগুন বলেন, একজন সাধারণ মানুষের জন্য দেড় লক্ষ থেকে শুরু করে মাত্র কয়েক লক্ষ টাকা খরচ করলেই খুলে যেতে পারে কানাডার মতো দেশের পথ। 

একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, চলতি বছরের মে মাসে লেবার ফোর্স সার্ভের একটি সমীক্ষায় কানাডায় বর্তমানে নিম্ন বেকারত্বের হারের সঙ্গে উচ্চহারে কর্মসংস্থান খালি থাকার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। সেখানে কানাডার বিভিন্ন সেক্টরে ক্রমবর্ধমান শ্রম ঘাটতির বিষয়টি তুলে আরও বলা হয়েছে, আগামী দিনে আরও বেশি সংখ্যক অভিবাসীকে আমন্ত্রণ জানাতে দেশটি বাধ্য হবে।

জানা গেছে ২০২২ সালেই কানাডায় ৪ লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি অভিবাসীকে স্থায়ী বাসিন্দা (পিআর) হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হবে। আর ২০২৪ সালে এই সংখ্যা বেড়ে হবে ৪ লাখ ৫০ হাজার।

কর্মসংস্থান এবং বেতনের সমীক্ষা অনুযায়ী, সমগ্র কানাডার ভেতরে অন্টারিওতে চাকরি খালি রয়েছে সবচেয়ে বেশি। সেখানে বর্তমানে ৩০ হাজার চাকরির সুযোগ রয়েছে। অন্যদিকে ম্যানিটোবায় ২ হাজার ৫০০টি চাকরির শূন্যপদ রয়েছে।

নিউজনাউ/একে/২০২২

X