alo
ঢাকা, বুধবার, মার্চ ২২, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ৮ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রপতি প্রার্থী: আগামীকালই কি চুড়ান্ত করবে আ.লীগ!

প্রকাশিত: ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩, ০৩:১১ পিএম

রাষ্ট্রপতি প্রার্থী: আগামীকালই কি চুড়ান্ত করবে আ.লীগ!
alo

 

নিউজনাউ ডেস্ক: রাজনীতির অঙ্গনে এখন আলোচনার বিষয় কে হচ্ছেন নতুন রাষ্ট্রপতি। প্রায় মাস দুয়েক ধরে চলা বিভিন্ন সম্ভাবনা আর গুঞ্জনে নাম শোনা গিয়েছে অনেকের। তবে আর খুব বেশিদিন বোধহয় সেই অপেক্ষা করতে হচ্ছে না। 

আগামীকাল মঙ্গলবার ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। আর দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সেই বৈঠকে রাষ্ট্রপতি পদে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সভায় আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করবেন।

আগামী ২৪ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের মেয়াদ শেষ হবে। আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি দেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতির পদে নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নপত্র জমা দিতে হবে। পরের দিন ১৩ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই করা হবে। একাধিক প্রার্থী থাকলে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদে ভোটগ্রহণ হবে। সংসদ সদস্যরা ভোট দিয়ে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করেন।

বিরোধী দল জাতীয় পার্টি প্রার্থী দেবে না বলে জানিয়েছে দলটি। আর সংসদে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীই নির্বাচিত হবেন। মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠকে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করার পাশাপাশি প্রস্তাবক ও সমর্থক কারা হবেন সেটাও চূড়ান্ত করা হবে বলে জানা গেছে।

কে হচ্ছেন বঙ্গভবনের পরবর্তী বাসিন্দা- সেটিই এখন সর্বত্র আলোচনায়। রাষ্ট্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদে রাজনৈতিকভাবে পোড় খাওয়া ও বিশ্বস্ত কাউকে বেছে নিতে চাইবে আওয়ামী লীগ। 

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী সূত্র জানিয়েছে, নানা বিচার-বিশ্লেষণ করে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তালিকা ছোট করে নিয়ে এসেছেন। এখন পর্যন্ত ছয়বারের এমপি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ও প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতিবিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমান সর্বোচ্চ বিবেচনায় আছেন।

পুরোদস্তুর রাজনীতিক হিসেবে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনকে রাষ্ট্রপতি পদে ‘শক্তিশালী’ প্রার্থী বিবেচনা করছেন দলের কেউ কেউ। 

দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের রাজনীতির পর তাঁকে রাষ্ট্রপতির সম্মান দেওয়া হতে পারে বলে মনে করছেন দলের নেতাদের কেউ কেউ। গত ২৪ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের যে নতুন কমিটি গঠন করা হয়, তাতে সভাপতিমণ্ডলীতে মোশাররফ হোসেনের নাম সভাপতির পরেই রাখা হয়েছে। এটাকেও কেউ কেউ রাষ্ট্রপতি পদে বিবেচনার ইঙ্গিত মনে করছেন। 

এদিকে মসিউর রহমান স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে তিনি অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব হন। এরপর জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ নানা দায়িত্ব পালন করেন।

২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ দ্বিতীয়বারের মতো সরকার গঠনের পর মসিউর রহমানকে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতিবিষয়ক উপদেষ্টা নিযুক্ত করা হয়। এর পর থেকেই তিনি এ দায়িত্বে আছেন। তিনি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদেরও সদস্য। বয়স, দীর্ঘদিন প্রধানমন্ত্রীর কাছাকাছি থাকা এবং অভিজ্ঞতা বিবেচনায় তাঁর সম্ভাবনাও দেখছেন দলের নেতারা।

এর বাইরে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী,  মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার, সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফীন সিদ্দিকসহ বেশ কয়েকজনের নাম আলোচনায় রয়েছে।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২৩

X