alo
ঢাকা, রবিবার, অক্টোবর ২, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে কারা জানালেন আইজিপি

প্রকাশিত: ০২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৫:৫৪ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার নেপথ্যে কারা জানালেন আইজিপি
alo


নিউজনাউ ডেস্ক: পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, তার নেপথ্যে ৩ বছর ধরে বার্ষিক ২৫ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে বাংলাদেশিদের একটি চক্রের নিয়োগ দেওয়া ৪টি লবিং ফার্ম কাজ করেছে। ‘তারা অভিযোগ করেছেন ২০০৯ সাল থেকে নাকি র‌্যাব কর্তৃক ৬০০ লোক গুম হয়েছে। অথচ আমি র‌্যাবে ঢুকেছিলাম ২০১৫ সালে। তাহলে আমাকে কেন ওই তালিকায় নেওয়া হয়েছে? 

নিউইয়র্কে এক নাগরিক সংবর্ধনা সমাবেশে দেয়া বক্তব্যে এসব কথা বলেন আইজিপি।

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘বড় সত্য হচ্ছে ২০০৯ সালে আমি এই নিউইয়র্কে বাংলাদেশ মিশনে ফার্স্ট সেক্রেটারি হিসেবে চাকরিতে ছিলাম।’

‘যে ৬০০ লোক গুমের অভিযোগ করা হয়েছে তাদের কোনো তালিকা কোথাও প্রকাশ করা হয়নি’ বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জাতিসংঘে দুদিনের পুলিশ প্রধানদের সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের অন্যতম সদস্য হিসেবে নিউইয়র্ক সফর করছেন আইজিপি ড. বেনজীর। সেখানে জ্যাকসন হাইটসের কাছে গুলশান টেরেস মিলনায়তনে এই নাগরিক সংবর্ধনার আয়োজন করে ‘যুক্তরাষ্ট্র নাগরিক কমিটি’।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন হিন্দাল কাদির বাপ্পা। মঞ্চে উপবেশন করেন নিউইয়র্কে কন্সাল জেনারেল ড. মুনিরুল ইসলাম।

‘দেশের বিরুদ্ধে, উন্নয়নের বিরুদ্ধে এবং অগ্রযাত্রার বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র হচ্ছে তা রুখে দিতে হবে’ এমন আহ্বান জানিয়ে সংবর্ধনা সমাবেশে আইজিপি বলেন, ‘স্বাধীনতা সংগ্রাম করে বিজয়ী হয়েছি। এখন চলছে মুক্তির লড়াই। এ লড়াই অব্যাহত রয়েছে। এই লড়াইয়ে জিততেই হবে।”

আইজিপি বলেন, ‘২২ জন তথ্য সন্ত্রাসী রয়েছে। এদেরকে জবাব দিতে হবে। আপনি যে মূল্যবোধের ওপর দাঁড়িয়ে রয়েছেন, সেই বিশ্বাসে যদি চ্যাম্পিয়ন হোন, তাহলে আপনাকেই সেটি পালন করতে হবে।”

তথ্য সন্ত্রাসীরা দেশের বিরুদ্ধে, তারা মানবতা বিরোধী যতসব অপপ্রচার চালাচ্ছে-মন্তব্য করে আইজিপির আরও বলেন, ‘নোংরা জিনিস ফেসবুকে দেখামাত্র ফ্লাশ করা দরকার। এর বিরুদ্ধে প্রকৃত সত্যকে উপস্থাপন করতে হবে-তাহলেই মিথ্যার পরাজয় ঘটবে।’

ড. বেনজীর বলেন, ‘বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় পরিণত করার চলমান লড়াইয়ে আমি সকলের সাথে রয়েছি।’

নিউজনাউ/আরবি/২০২২

X