alo
ঢাকা, শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

'দেশে স্বল্প সময়ের মধ্যে ই-ভিসা চালু হবে'

প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর, ২০২২, ১১:১৬ পিএম

'দেশে স্বল্প সময়ের মধ্যে ই-ভিসা চালু হবে'
alo

 

চট্টগ্রাম ব্যুরো: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ তার নাগরিকদের জন্য ই-গেইট ও ই-পাসপোর্ট প্রবর্তন করেছে। আগামী দিনে ই-ভিসাও চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে বাংলাদেশের।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) রাতে চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ছয়টি ইলেকট্রনিক গেটের (ই-গেট) উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একথা জানান। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতর এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।


প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের আগে কথা দিয়েছিলেন ডিজিটাল বাংলাদেশ র্নিমাণ করবেন। তিনি তার কথা রেখেছেন। এ সেক্টরটা তিনি সম্পূর্ণ ডিজিটাল করার পদক্ষেপ নিয়েছেন।


তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার নির্দেশনায় এবং সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। এখন প্রতিদিন ২০ হাজার ই-পাসপোর্ট প্রিন্ট করছি। ইতোমধ্যে ঢাকায় ২৬টি ই-গেট চালু করেছি। আজ চট্টগ্রামে ৬টি ই-গেট উদ্বোধন করছি। ই-গেট সেবা দেশি ও বিদেশিরা সহজে এ সেবা নিতে পারবেন। যাদের ই-পাসপোর্ট আছে তারা সহজে পার হয়ে যাবেন। চট্টগ্রামবাসীর জন্য এটি প্রধানমন্ত্রীর উপহার। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশ ও জাতির উন্নতির স্বার্থে বর্তমান বিশ্বে প্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান উন্নতি হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সরকারের ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে ২২ জানুয়ারি ২০২০ সালে মাননীয় প্রধামন্ত্রী মাইক্রো প্রসেসর চিপযুক্ত ই-পাসপোর্টের উদ্বোধন করেন। এর মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বে ১১৯তম এবং দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসাবে ই-পাসপোর্ট চালু হয়। ই-পাসপোর্ট একটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন এবং অধিকতর নিরাপদ ভ্রমণ দলিল, যা ই-গেইটের সহায়তায় দেশে ও বিদেশে বাংলাদেশের নাগরিকদের ইমিগ্রেশন আরও সহজ ও নিরাপদ করবে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ICAO (International Civil Aviation Organization) এর ৭২তম সদস্য পদ প্রাপ্ত হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশিগণ পর্যায়ক্রমে ICAO এর অন্যান্য সদস্য দেশ সমূহের ই-গেইটের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে। ফলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও ই-পাসপোর্টের ক্ষেত্র প্রসারিত হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. নূরুল আনোয়ার বলেন, ‘ই-গেটের মাধ্যমে ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটাল হবে। শুধু ভিসা যাচাই প্রক্রিয়া কিছুটা ম্যানুয়াল থাকছে। ই-পাসপোর্ট ও স্বয়ংক্রিয় পাসপোর্ট ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের আওতায় ই-গেট স্থাপনের কাজ চলছে। ঢাকায় এখন পর্যন্ত ৫৭ হাজার যাত্রী এ সেবা নিয়েছে।’

অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য এম এ লতিফ ও আবু রেজা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন নদভী, বিভাগীয় কমিশনার আশরাফ উদ্দিন, সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় এবং পাসপোর্ট অধিদফতরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক আবু সাইদ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২২

X