alo
ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের সাকিব হারলেন মাশরাফির কাছে

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৮:৩১ পিএম

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের সাকিব হারলেন মাশরাফির কাছে
alo

 

নিউজনাউ ডেস্ক: টি-২০ ক্রিকেট মানেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। কখনও শেষ বলে ম্যাচের ফল নির্ধারণ। কখন এক উইকেটের জয়। কখনও এক-দুই বা পাঁচ রানের জয়। জমাট ওই লড়াইয়ের হিসেবে বিপিএলের নবম আসরের সেরা ম্যাচটা দেখালো সিলেট স্ট্রাইকার্স ও ফরচুন বরিশাল। জমে যাওয়া ম্যাচে সাকিবের বরিশালকে ২ রানে হারিয়েছে মাশরাফির সিলেট। 

শেষ ওভারে সাকিবের ফরচুন বরিশালের দরকার ছিল ১৫ রান। দুর্দান্ত বোলিং করা রেজাউর রহমান রাজার হাতে বল তুলে দেন সিলেট স্ট্রাইকার্স অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। রাজা প্রথম ডেলিভারিটি দেন ওয়াইড। পরের বলে আউট করেন মারমুখী ইফতিখার আহমেদকে। দ্বিতীয় বলে উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের দারুণ থ্রোতে রানআউট মেহেদি হাসান মিরাজ। তৃতীয় বলে রাজা দেন এক রান। শেষ তিন বলে দরকার লাগে ১৩। চতুর্থ বলে ডট দেন রাজা। পঞ্চম বলে মোহাম্মদ ওয়াসিম ছক্কা হাঁকালে ফের টান টান উত্তেজনা। ছক্কা হলে ম্যাচ টাই। তবে রাজার শেষ ডেলিভারি পেছনের বাউন্ডারিতে চার হলেও শেষ হাসি হাসে সিলেটই।

ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নামে সিলেট। জয়ের ধারাবাহিকতায় থাকা দলটি ১৫ রানে হারায় তিন উইকেট। তবে এইদিন রানে ফেরা ওপেনার নাজমুল শান্ত ছিলেন এক প্রান্তে সাবলীল। তিনি পাঁচে নামা টম মুরিসকে নিয়ে ৮১ রানের জুটি গড়েন। মুরিস ফিরে যান ৩০ বলে ৪০ রান করে। এরপর থিসারা পেরেরা ১৫ বলে ২১ রান করেন। শান্তের ৬৬ বলে ৮৯ রানের ইনিংস দলীয় ১৭৩ রানের টার্গেটে বড় ভূমিকা রাখে।

ফরচুন বরিশালের জয়ের লক্ষ্য ছিল ১৭৪ রানের। সাইফ হাসান শুরুটা করেন দারুণ। ১৯ বলে ৪ ছক্কায় ৩১ রান তুলে দিয়ে যান এই ওপেনার। এনামুল বিজয় অবশ্য সুবিধা করতে পারেননি, আউট হন মাত্র ৩ রানে।

তবে সাকিব আল হাসান আর ইব্রাহিম জাদরান ৩৯ বলে ৬১ রানের জুটিতে ম্যাচটা অনেকটা হাতে নিয়ে এসেছিলেন। ১৪তম ওভারে রেজাউর রহমান রাজা দারুণ এক স্পেলে পাল্টে দেন হিসাব।

৩৭ বলে ৪২ করা ইব্রাহিম জাদরান আর ১৮ বলে ৩ চার, ১ ছক্কায় ২৯ করা সাকিব, দুই সেট ব্যাটারকেই পরিষ্কার বোল্ড আউট করেন রাজা। ওই ওভারটাই ছিল ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট। এরপর ইফতিখার আহমেদ ১৩ বলে ১৭ আর করিম জানাত ১২ বলে ২১ করলেও শেষ রক্ষা হয়নি বরিশালের।

রাজা ৪ ওভারে ৪১ রান খরচ করেন। তবে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে তিনটি উইকেট নিয়েছেন এই পেসার। করেছেন শেষ ওভারটিও। দুটি করে উইকেট তানজিম হাসান সাকিব আর মোহাম্মদ আমিরের। মাশরাফি বিন মর্তুজা ৩ ওভারে ৪২ দেওয়ার পর আর বল হাতে নেননি।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২৩

X